Archives

হাইডেল বার্গের লোককন্যা

লেটুস পাতার মতো ছড়ানো হৃদয়

আমাকে ফিয়েছো

রকেট পাতার মতো চোখের পাপড়ি

মেলে দিয়েছো আমার জন্য

স্যালমন ফিশের মতো হালকা গোলাপী ঠোঁটের

পরতে আহ্বান গোপন ছিল না।

নেকার ব্রিজের মতো দুই পাড়ের বন্ধনের হাত

স্পর্শ পেয়েছি আমার হাতে

এই হাতেই টলমলে জল ঢেলে দিয়েছো গ্লাসের পর গ্লাস

জলেই বাঁচতে শিখিয়েছো

তুলে দাওনি তোমাদের প্রিয় স্যামপ্যান

আমার জন্য কী দেবে দাও এভাবে অকপট চাওয়া তোমার।

হাইডেল বার্গের লোককন্যা

একটি কবিতা তোমার জন্য থাকবে,

ওখানে আমাকে পাবে, তোমাকেও আমি।

গ্যেটের ফাউস্ট ও আগামীর আমি

কতটুকু আর দূরের বয়ান

ফাউস্ট তবে কী তুমি সময়ের সঙ্গী।

ভেঙে চুরে দূরের সময়

গ্যোটে বিনির্মাণ করে যায়

অতীত ও বর্তমান

সময়ের ভাঙ-চুর ছাপিয়ে ফাউস্ট

তুমি আজ

তুমি আগামীর

তুমি জীবন্ত মানব।

বিশ্বগ্রাম ঘুরে ঘুরে চির নতুন সত্তায়

পৌঁছে গেছো

নরকের দহন জ্বালায় তোমাকে নিয়ে

কতই না হয়েছে পুতুল নাচ।

এখন আমিও খুঁজে পাই

আমার ভেতর

অতৃপ্ত আত্মার মুক্তি

নিজের ঘরের বাতি রেখে

পরের ঘরের জ্বালাই বাতি

বাঁচি মধুর মুহূর্ত সঙ্গে নিয়ে

সবুজের শুশ্রƒষায়…

জলের সিঁড়িতে পা

জলের সিঁড়িতে পা রাখতে আমার বড় ভয় হয়

কখন গড়িয়ে পড়ি

নিমজ্জিত হই

কিংবা বুদবুদ ফেনায়

বেজায় গরম জলের গড়ানে

ভেসে মরি!

শাওলার সিঁড়িতে পা রাখতে আমার বড় ভয় হয়

অথচ তৃষ্ণা সংবরা মাছ

সময়-অসময়ে কাছে ডাকে।

নামতা শেখায় জলের…