Archives

মেহেদী মিলনের কবিতা

অপেক্ষা

আজ এই অসহ্য পূর্ণিমার রাতে
কালীনদের জল ছুঁয়ে বল্?
ভালবাসা কি?
ভালবাসা কি গুলশান বনানীর দালানকোঠা
নাকি মধ্য দুপুরে উড়ে যাওয়া
দুই শালিকের চার চোখ?

পদ্মা পারে যা, ঘাস ছুঁয়ে বল্
ভালবাসা কি?
ভালবাসা কি বিশ্বব্যাংক?
নাকি গাঁও গেরামের বারান্দায়
ঝরে পড়া একমুঠো চাঁদ!
ভালবাসা কি?
ভালবাসা মানে অপেক্ষা;
অপেক্ষাই ভালবাসা অপেক্ষাই জীবন।

নগর সাঁওতার গাঁয়ে

নগর সাঁওতার গাঁয়ে
কালীনদের পড়ে
একবার যদি পাইতাম তোরে
ধরায়ে ঘাড়ের গামছা-নামতাম জলে,
জল সাঁতার শেষে, তোর কাছে এসে
বসতাম ঘাসে–বলতাম চুপি চুপি
ভালবাসি ভালবাসি ভালবাসি।
এইসব কবিস্বপ্ন;
তবু মানুষের দাবী লয়ে বলি–
গুলশানের বাতাসে তোর মাথার একখান চুল
উড়ায়ে দিস,
ইচ্ছে করে জানতে
ভালবাসা ছাড়া খুব ভাল কি আছিস?